বঙ্গে মেলা জিনিস নেই। চাকুরি নেই, ফ্যাক্টরি নেই, ইস্কুলে মাস্টার নেই, যেকানে মাস্টার আচে সেকানে পড়ুয়া নেই, হাসপাতালে ডাক্তার নেই, পুলিসে পেয়াদা নেই এবং মোচ্ছবের অভাব নেই। অতেব কেরেস্তানি পুজো না মিটতে আরেক মোচ্ছব এসে পড়েচে। বে অফ বেঙ্গলের সে মোচ্ছবটি নিয়ে বেজায় গোল বেধে গ্যাচে, বঙ্গের সকল রঙ্গ ভঙ্গ হবার উপক্রম হয়েচে। বাবু বিবি বলচেন চাদ্দিকে ওমিক্রনে দাঁত কনকন কচ্ছে, এর মদ্যে মেলা হবে এ বা কি কতা? শুনে কোরোনা দেবী ভেঙচি কেটে বল্লেন, কেবল মেলা নয়, খেলাও হবে। তা য়ুরোপে প্রিমিয়ার লিগ হচ্চে, অস্ট্রেলিয়ায় ছাই ঝিঁঝি খেলা হচ্চে, মায় অসভ্য আফ্রিকাতেও ঝিঁঝি হচ্চে। বঙ্গের বাবু বিবি কি কেবল গোমড়া মুখে নেটফ্লিক্স ও অ্যামাজন প্রাইম দেকে কাটাবেন?

বড় মুখ করে এ কতাটি সম্পাদককে বলতেই সে তেতে উঠলে। বল্লে, আপনিও এদানি কোয়ারান্টিনে থাকচেন নাকি? সংবাদ কিচুই রাখেন না, আবার ঘটা করে নকশা লেকা হচ্চে? এ খেলা সে খেলা নয়। এ হচ্চে হাত পা মাতা ভাঙা এবং ডেমোক্রেসি গড়ার খেলা। গালমন্দ শুনে মনে পল্ল, দেশে আর সব খেলা বন্দ হলেও ও খেলাটি বন্দ করা হয় না। কর্পোরেশন, মুনিসিপ্যাল্টি, এসেম্বলি, পার্লামেন্ট, পঞ্চায়েত — ডেমোক্রেসি গড়া চলবেই। বৎসরে ওই কটি দিনই ডেমোক্রেসি চোকে দ্যাকা যায় কিনা। ডেমোক্রেসি ঠাকরুণ বেজায় বিউটি কনশাস। তিনি অন্য দিনগুলিতে সানস্ক্রিন লোশন লাগিয়েও বার হতে চান না। ছোটো, বড়ো, মেজ, সেজ গবর্নমেন্ট তেনাকে নাহক সম্মান করেন বলে তেনার ইচ্ছের বিরুদ্ধে বার হতেও বলেন না। গবর্নমেন্ট ও তার স্যাঙাতরাই যকন না খেয়ে, না ঘুমিয়ে ডেমোক্রেসির কাজ করে দিচ্চেন তকন আর ঠাকরুণকে কষ্ট দেয়া কেন?

নাগরিকের পক্ষ থেকে আবেদন:

 প্রিয় পাঠক,
      আপনাদের সাহায্য আমাদের বিশেষভাবে প্রয়োজন। নাগরিক ডট নেটের সমস্ত লেখা নিয়মিত পড়তে আমাদের গ্রাহক হোন।
~ ধন্যবাদান্তে টিম নাগরিক।

তবে ঠ্যাঁটা বাবুদের আবার গবর্নমেন্টে পেত্যয় হয় না। তেনারা বে অফ বেঙ্গলের বেগতিক রদ করা হচ্চে না দেকে জজসায়েবদের এজলাসে হত্যে দিলেন। গবর্নমেন্ট কিন্তু প্রসন্ন হলেন। মেলা হবে বল্লে বাবু বিবি রাগ কচ্ছেন, আবার হবে না বল্লে দেশসুদ্ধ লোক বলবে, দেকেচ কী অন্যায়! কেরেস্তানি পুজো কত্তে দিলে, হিঁদুর বেলায় পাবলিক হেলথ দ্যাকাচ্চে। বে অফ বেঙ্গলের পাড়ে যে পেল্লাই মন্দির তোয়ের হচ্চে সেটি তকন কেউ চেয়েও দেকবে না। ও ঝক্কি জজসায়েবরা পোয়ালেই ভালো। যা শত্রু পরে পরে।

তবে জজসায়েবদেরও হাত পা বাঁধা, আইনকানুন মোতাবেক চলতে হয়। তেনারা শুধোলেন ওমিক্রনের বেদনায় কী কী টোটকার বেওস্তা হচ্চে? তৎসত্ত্বেও যদি বেদনা মাতায় চড়ে তকন কে দায়ী হবেন? গবর্নমেন্ট জজের মুখে নুন দিলেন। বাইজোভ, ওমিক্রন মাইক্রোস্কোপিক পিপীলিকা বই তো নয়। তার জারিজুরি সকলি মিঠে জলে। নুন দিয়েচ কি পালাবার পথ পায় না। সায়েন্স বলচে বে অফ বেঙ্গলে নুন গিজগিজ কচ্ছে। অতেব ওমিক্রনের চালাকি ও তল্লাটে চলবে না। নিন্দুকে নিন্দে কত্তে ছাড়ে না, তাই এতেও নিন্দে কল্লে। আসল কতাটি হল দু সন ইস্কুল বন্দ থাকলেও সায়েন্স বড়ো হচ্চে। সকল গুহ্য ডেভেলপমেন্ট নিন্দুকেরা জানতে পারে না, খবর সরকার বাহাদুরের দফতরে সিধে এসে হাজির হয়। তাই সেকালে সাগরে সন্তান বিসর্জন দেয়া হত, একালে মেলা রেখে ইস্কুল বিসর্জন দেয়া হচ্চে। ইস্কুলগুলি যে সব মিঠে জলে।

 

ওয়ার্নিং

নকশাটি নুনের জলেই ভাসিয়ে দিতেম, কিন্তু আপনাদের একটি গোস্তাকি নজরে পল্ল। তাই দু কতা না বলে পারচি নে।

বাবু বিবি প্রধান সেবককে নিয়ে নাহক রগড় কচ্ছেন। ছেলেবেলা হতে রোড শোয়ের রেলা দেকিয়ে তাঁর কনফিডেন্স কৈলেস পর্বতের মতন উচ্চ হয়েচিল, একটি রোড শো ফ্লপ হতেই সকলে তেনাকে ডরপোক বলে ভয় দ্যাকাবেন এ বা কি কতা? হেসে এ ওর গায়ে গড়িয়ে পড়চেন, কেউ বা বায়োস্কোপের গব্বর সিংহের মতন বলচেন, ডরলেই মত্তে হয়। বুড়ো বয়সে তিনি ‘দাঁদাঁ, সর্বনাশঞ হলঁ। সর্বনাশঞ হলঁ!’ বলে আদালত হতে নারাইস পর্বত অবধি ঘুরে মরচেন আর সকলে দন্তবিকাশ কচ্ছেন। কাজটি মোটে ভাল হচ্চে না। অ্যামন নিদ্দয় ব্যাভার কল্লে তিনি ঝোলা নিয়ে রওনা দেবেন, তকন বেজায় বিপদ হবে। সে বয়স নেই যে তিন দিকের সাগর কুমিরের পিঠে চেপে পার হবেন। অতেব যেদিকে লাল ও ম্লেচ্ছ দেশ সেদিকেই যেতে হবে। এম্নি শীতে গুহায় বাস করা চলে না। সিনিয়র সিটিজেনদের অ্যামন সংকটে ফেলা উচিত হয় না। হুতোম আপনাদের ওয়ার্নিং দিচ্চে, পরে য্যানো সিডিশন কেসে স্যাঙাত করে নেবেন না।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.